,

ইসরাইল সন্ত্রাসী রাষ্ট্র, ফিলিস্তিনি হত্যা মানা যায় না : এরদোগান

জনমত ডেস্ক : ইসরাইলকে একটি সন্ত্রাসী রাষ্ট্র হিসেবে অভিহিত করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান। জেরুজালেমে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস উদ্বোধনকে কেন্দ্র করে ইসরাইলি বাহিনীর গুলিতে ৫৫ ফিলিস্তিনি শহীদ হওয়ার ঘটনায় এরদোগান এ কথা বলেন। এরদোগান বলেন, ইসরাইল একটি সন্ত্রাসী রাষ্ট্র। তারা যেভাবে নিরস্ত্র নিরীহ ফিলিস্তিনিদের নির্বিচারে হত্যা করছে তা কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। এ ঘটনার প্রতিবাদে ইসরাইল ও যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত নিজেদের রাষ্ট্রদূতকে ডেকে পাঠিয়েছে তুরস্ক। তুরস্কের উপপ্রধানমন্ত্রী বেকির বোজদাগ জানান, ওয়াশিংটন ডিসি ও তেল আবিবে থাকা কূটনীতিকদের পরামর্শের জন্য তুরস্কে ডেকে পাঠানো হয়েছে। তিনি আরো জানান, ফিলিস্তিনিদের সঙ্গে ভ্রাতৃত্ব দেখানোর জন্য তুরস্কে তিন দিনের রাষ্ট্রীয় শোক ঘোষণা করা হয়েছে। ইসরাইলি বাহিনীর হাতে নিরীহ ফিলিস্তিনি নিহতের ঘটনায় বিশ্বের মুসলিম দেশগুলোর সংগঠন অরগানাইজেশন অব ইসলামিক কো-অপারেশনের (ওআইসি) জরুরি বৈঠক আহŸান করেছে তুরস্ক। আগামী শুক্রবার এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হতে পারে। একইসঙ্গে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের বৈঠকও আহŸান করেছে দেশটি। এ ঘটনার নিন্দা জানিয়ে ইসরাইল থেকে নিজেদের রাষ্ট্রদূত অনির্দিষ্টকালের জন্য প্রত্যাহার করে নিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকাও। দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘ইসরাইলের সর্বশেষ নির্বিচার ও উদ্বেগ সৃষ্টিকারী আক্রমণে দক্ষিণ আফ্রিকা সরকার তাদের রাষ্ট্রদূত সিসা নগমবানেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত প্রত্যাহার করে নিচ্ছে। এই সিদ্ধান্ত তাৎক্ষণিক কার্যকর হবে।’ বিবৃতিতে আরো বলা হয়, ‘ইসরাইলি হামলার শিকাররা জেরুজালেমে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস স্থানান্তরের উস্কানিমূলক ঘটনায় শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদে অংশ নিচ্ছিল। তার বিপরীতে তাদের ওপর ইসরাইলি বাহিনী সহিংস আগ্রাসন চালিয়েছে।’ ইসরাইলি সেনাদের নৃশংস হামলায় কমপক্ষে ৫৫ জন নিহত হওয়ার পর ক্ষোভে ফুঁসছে সমগ্র ফিলিস্তিন। মঙ্গলবারও সেখানে ইসরাইল বিরোধী বিক্ষোভ অব্যাহত রয়েছে। সবচেয়ে বেশি উত্তেজনা বিশেষ করে গাজায়। সোমবার সেখানে যেসব মানুষকে হত্যা করেছে ইসরাইলিরা তাদেরকে দাফন করার কথা। ইসরাইলের এই হত্যাকÐের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে বিশ্ব নেতৃবৃন্দ। ভিয়েনায় জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছেন, “গাজা থেকে এত মানুষ হত্যার যে খবর আসছে তাতে আমি খুবই উদ্বিগ্ন।” লেবাননের প্রধানমন্ত্রী সাদ হারিরি সোমবার সকাল থেকেই একের পর এক টুইটে জেরুজালেমে মার্কিন দূতাবাস স্থানান্তরকে ‘উস্কানিমূলক’ বলে বর্ণনা করে আসছেন। গাজা-ইসরাইল সীমান্তে সোমবার ফিলিস্তিনি বিক্ষোভকারীদের ওপর ইসরাইলের প্রাণঘাতী শক্তি প্রয়োগের নিন্দা করে একটি বিবৃতি দিয়েছে মিশর।এছাড়া, মানবাধিকার সংগঠনগুলোও গাজা সীমান্তে ইসরাইলের সামরিক শক্তি ব্যবহারের নিন্দা জানিয়েছে। আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল ইসরাইলের পদক্ষেপকে আন্তর্জাতিক আইনের মারাত্মক লঙ্ঘন বলে সমালোচনা করেছে। এ ঘটনায় শোক প্রকাশ করতে সাধারণ ধর্মঘট ডেকেছে প্যালেস্টাইন লিবারেশন অর্গানাইজেশন (পিএলও)।পুরো ফিলিস্তিনি ভূখন্ড জুড়ে এ ধর্মঘট চলবে বলে জানিয়েছেন পিএলও’র নির্বাহী কমিটির সদস্য ওয়াসেল আবু ইউসেফ।সহিংসতার বিষয়ে নিরপেক্ষ তদন্তের আহŸান জানিয়ে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে একটি খসড়া প্রস্তাব উত্থাপন করেছে কুয়েত। এতে তীব্র ক্ষোভ ও বেদনা প্রকাশ করা হয়েছে। কিন্তু কুয়েতের উদ্যোগকে জাতিসংঘে আটকে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্র বিষয়ক প্রধান ফেডেরিকা মঘেরিনি ও বৃটেন উভয় পক্ষকে বিরত থাকার আহŸান জানিয়েছে। আল-জাজিরা, পার্সটুডে, বিবিসি, রয়টার্স।

Share Button


     এ বিভাগের আরো খবর পড়ুন

বিজ্ঞাপন দিন