,

মেয়র নির্বাচনে রাবিনা খানের ইশতেহার ঘোষণা: ‘যোগ্য প্রার্থীকে নির্বাচিত করুন’

০ ৫ হাজার ঘর নির্মাণের প্রতিশ্রুতি
০ নাইফ ক্রাইম প্রতিরোধে অতিরিক্ত ৫০ পুলিশ 
০ ভিলেজ পলিটিক্স থেকে বেরিয়ে আসার আহবান 
০ কাউন্সিলর পদে পিপলস অ্যালায়েন্স’র ৩৬ প্রার্থী

আর মাত্র একমাস। ৩ মে টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের কাউন্সিলর ও মেয়রাল নির্বাচন। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে টাওয়ার হ্যামলেটসের নির্বাচনী মাঠ সরগরম হয়ে ওঠছে। নির্বাচনে চার মেয়র প্রার্থী- লেবার পার্টির জন বিগস, পিপলস অ্যালায়েন্স এর প্রার্থী কাউন্সিলর রাবিনা খান, এসপায়ার এর প্রার্থী কাউন্সিলর অহিদ আহমদ ও কনজার্ভেটিভ পার্টির প্রার্থী ডাঃ আনোয়ারা আলী প্রচারণায় ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন।

২৫ মার্চ রোববার বিকেলে পূর্ব লন্ডনের অ্যাট্রিয়াম মিলনায়তনে এক জনাকীর্ণ সমাবেশে নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছেন পিপলস অ্যালায়েন্স এর মেয়র প্রার্থী কাউন্সিলর রাবিনা খান। একই অনুষ্ঠানে পিপলস অ্যালায়েন্স পার্টি থেকে যে ৩৬ কাউন্সিলর প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন তাঁদেরকেও আনুষ্ঠানিকভাবে পরিচয় করিয়ে দেয়া হয়। অনুষ্ঠানে কমিউনিটির বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার প্রায় এক হাজার বাসিন্দা উপস্থিত ছিলেন বলে দাবি আয়োজকদের।

সমাবেশে কমিউনিটির শীর্ষস্থানীয় নেতৃবৃন্দ রাবিনা খানকে নির্বাহী মেয়রের পদে সবচেয়ে যোগ্য প্রার্থী উল্লেখ করে কমিউনিটির বৃহত্তর স্বার্থে তাঁকে নির্বাচিত করার আহবান জানান। তাঁরা বলেন, রাবিনা খানই পারেন টাওয়ার হ্যামলেটসের বিভিন্ন ধর্ম, বর্ণ ও সংস্কৃতির মানুষকে ঐকবদ্ধ করতে। তিনি একজন কাউন্সিলর হয়ে মানুষের কল্যাণে যে ভুমিকা রেখেছেন, তা প্রমাণ করে মেয়র নির্বাচিত হলে অনেক বেশি কাজ করতে পারবেন। আমরা যদি টাওয়ার হ্যামলেটসে একজন বাঙালি নারীকে এমপি নির্বাচিত করতে পারি তাহলে এবার একজন নারীকে কেন মেয়র নির্বাচিত করতে পারবো না? তিনি কাউন্সিলের কেবিনেট মেম্বার থাকাকালে বিভিন্নভাবে কৃতীত্বের সাক্ষর রেখেছেন। মাদক, নাইফ ক্রাইম ও গ্যাং ভায়োলেন্সের বিরুদ্ধে তাঁর সোচ্চার ভুমিকা বারবার প্রশংসিত হয়েছে। সুতরাং আগামী ৩ মের নির্বাচনে তাঁর মতো যোগ্য প্রার্থীকেই আমাদের মেয়র নির্বাচিত করতে হবে। রাবিনা খান তাঁর নির্বাচনী ইশতেহারে হাউজিং, শিক্ষা, চিকিৎসা আর অপরাধ দমনকে অগ্রাধিকার দিয়েছেন।

উল্লেখ্য, গত ২০১৫ সালের মেয়র নির্বাচনে রাবিনা খান স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে লড়াই করে অল্প ভোটের ব্যবধানে লেবার দলের প্রার্থী জন বিগসের কাছে পরাজিত হন। ওই নির্বাচনে তিনি প্রায় ২৭ হাজার ভোট পেয়েছিলেন। তিনি সাবেক মেয়র লুতফুর রহমানের প্রশাসনে হাউজিং বিষয়ক কেবিনেট মেম্বার হিসেবে সাফল্যের সাথে দায়িত্ব পালন করেন।

বক্তিতায় টাওয়ার হ্যামলেটসের হাউজিং সমস্যা সমাধানে মোট ৫ হাজার ঘর নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন রাবিনা খান। এলাকার উন্নয়নে সেবামূলক নানা কর্মসূচী আবারো ফিরিয়ে আনতে চান তিনি। রাবিনা খান ২০ হাজার চাকরি ও এপ্রেন্টিশিপ সুযোগ সৃষ্টির আশাবাদ ব্যক্ত করেন। বিজয়ী হলে নাইফ ক্রাইম দমনে অতিরিক্ত ৫০ পুলিশ নিয়োগের প্রতিশ্রুতি দেন তিনি। সমাবেশে আসন্ন নির্বাচনে রাবিনা খানকে সমর্থন করার পেছনে যুক্তি তুলে বক্তব্য রাখেন টাওয়ার হ্যামলেটসের সাবেক ডেপুটি লীডার বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ রাজন উদ্দিন জালাল ও সাবেক মেয়র লুতফুর রহমানের প্রশাসনের অন্যতম দায়িত্বশীল আইনজীবী সাজিদ মিয়া।
পিপলস অ্যালায়েন্স অব টাওয়ার হ্যামলেটসের চেয়ার কাউন্সিলর আব্দুল আসাদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় আরো বক্তব্য রাখেন কে বালার্ড, গ্যারি র‌্যাডিন, সেন্ট্রিস্ট পার্টির লীডার ডেভিড বার্কার ও চেলসির ফুটবলার মিকি আমব্রোস ও র‌্যাচেল ভিনসেন্ট।

রাজন উদ্দিন জালাল তার বক্তব্যে রাবিনা খানকে দীর্ঘদিন ধরে জানেন উল্লেখ করে বলেন, ইস্ট এন্ডে রাজনীতির হাওয়া বদল হতে শুরু করেছে। তিনি এক্ষেত্রে পার্শ্ববর্তী বারা নিউহামের উদাহরণ তুলে ধরেন। রাজন উদ্দিন জালাল বলেন, রাবিনা একজন সক্ষম নেতা ও দক্ষ সংগঠক। অতীতে কাউন্সিলের কেবিনেটে সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করে দক্ষতা অর্জন করেছেন। তিনি একজন নিরলস ক্যাম্পেইনার হিসেবে এলাকাবাসীর আকাঙক্ষা পূরণে সক্ষম হবেন উল্লেখ করে রাজন উদ্দিন জালাল আরো বলেন, দায়িত্ব পেলে তিনি জনগণের মেয়র হিসেবে সবার জন্যই দায়িত্বটি চমৎকারভাবে পালনে সক্ষম হবেন। তাঁর সেই যোগ্যতা তিনি অর্জন করেছেন। মহিলা প্রার্থীকে ভোট দেওয়া নিরুৎসাহিত করতে যারা ইসলামের নামে বিভ্রান্তিকর প্রচারণা চালান তাদেরকে সমুচিত জবাব দেওয়ার জন্য এবারের নির্বাচনে রাবিনা খানকে বিজয়ী করার আহবান জানান তিনি। সাবেক মেয়র প্রশাসনের অন্যতম দায়িত্বশীল সাজিদ মিয়া এই নির্বাচনে রাবিনা খানকে সমর্থন করছেন। সমাবেশের বক্তিতায় তিনি রাবিনা খানকে নির্বাচিত করার আহবান জানিয়ে বলেন আমাদেরকে ভিলেজ পলিটিক্সের ক্ষুদ্র গণ্ডি থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। সাজিদ মিয়া যোগ্যতম প্রার্থী উল্লেখ করে রাবিনাকে নির্বাচিত করার আহবান জানান। মেয়র পদে ভোট দিয়ে রাবিনা খানকে জয়যুক্ত করার আহবান জানিয়ে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কমিউনিটি সংগঠক ও সেইন্ট পিটার্স এসোসিয়েশনের চেয়ারপার্সন আলহাজ্ব আতিক মিয়া, কমিউনিটি সংগঠক মিসবাহ খান, মোহাম্মদ লতিফ, সৈয়দ নাসের জামান, কলা মিয়া, কাজী শাহনারা বেগম ও স্পিটালফিলডস হাউজিং এসোসিয়েশনের সাবেক চেয়ারপাসন মোহাম্মদ শামসুল হক।

Share Button


     এ বিভাগের আরো খবর পড়ুন

বিজ্ঞাপন দিন