,

লন্ডনে ৮ম বাংলাদেশ বইমেলা ২৩ ও ২৪ সেপ্টেম্বর

জনমত ডেস্ক ।। আগামী ২৩ ও ২৪ সেপ্টেম্বর পূর্ব লন্ডনের ব্রাডি আর্ট সেন্টারে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ‘৮ম বাংলাদেশ বইমেলা, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক উৎসব ২০১৮। সম্মিলিত সাংস্কৃতিক পরিষদ (ইউকে)র উদ্যোগে দুইদিনব্যাপি এই বইমেলার উদ্বোধন করবেন প্রখ্যাত কথাসাহিত্যিক ও বাংলাদেশ শিশু একাডেমির চেয়ারম্যান সেলিনা হোসেন। আয়োজনকে উপভোগ্য করতে সংশ্লিষ্টরা গ্রহন করেছেন নানা উদ্যোগ। এনিয়ে ইংল্যান্ডের সাহিত্য-সংস্কৃতি অঙ্গনে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা বিরাজ করছে। বইমেলা ও সাহিত্য সংস্কৃতি উৎসবকে সার্বজনীন করতে উদ্যোক্তাদেরও আগ্রহের কোনও কমতি নেই। সর্বশেষ গত ২৯ আগস্ট এই আয়োজনকে সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন লন্ডনস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশনের কমিশনার মি. মো. নাজমুল কাওনাইন। বুধবার বিকাল ৪টায় সম্মিলিত সাংস্কৃতিক পরিষদ (ইউকে)র নির্বাহী কমিটির নেতৃবৃন্দের সঙ্গে হাইকমিশন ভবনের সভাকক্ষে আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় তিনি এই আশ্বাস প্রদান করেন। এ সময় তিনি বলেন, ‘যুক্তরাজ্যে বাংলা সাহিত্য ও সংস্কৃতিকে পৃষ্ঠপোষকতায় বইমেলা আয়োজনের গুরুত্ব অপরিসীম। মতবিনিময় সভায় হাইকমিশনের মি. শ্যামল চৌধুরী, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক পরিষদ (ইউকে)র সভাপতি ফারুক আহমদ, সহ-সভাপতি ইসহাক কাজল, কোষাধ্যক্ষ এ কে এম আব্দুল্লাহ, সহ-সাধারণ সম্পাদক এম মোসাহিদ খান, সাংগঠনিক সম্পাদক স্মৃতি আজাদ এবং সদস্য জামাল আহমদ খান। এর আগে গত ২৭ আগস্ট অনুষ্ঠিতব্য ‘৮ম বাংলাদেশ বইমেলা সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক উৎসব ২০১৮’ উপলক্ষে বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধিদের নিয়ে পূর্ব লন্ডনের ১০১ খ্রিস্টিয়ান স্ট্রিটে এক প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়। ফারুক আহমদের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন বুলবুলের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানকে সফল করতে সংশ্লিষ্টরা তাদের বিভিন্ন পরিকল্পনার কথা তুলে ধরেন। সভায় লন্ডন ও বার্মিংহামের বিভিন্ন এলাকার তেইশটি সংগঠনের প্রতিনিধিরা অংশ নেন। প্রত্যেক বক্তাই নিজ নিজ অবস্থান থেকে দুইদিনব্যাপি অনুষ্ঠানকে সফল করতে প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। পরামর্শমূলক এ সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, এ কে এম আব্দল্লাহ, এম মোসাহিদ খান, আনোয়ারুল ইসলাম অভি, আরাফাত তানিম, নজরুল ইসলাম, মোস্তফা জামান নিপুন, জুয়েল রাজ, এস এম শামসুর রহমান, এম এ জামান, শাহ সোহেল আমিন, ফারাহ নাজ, ইংরেজ কবি স্টিফেন ওয়াট্স, রহমত আলী, আনোয়ার শাহজাহান, মুহাম্মদ শরীফুজ্জামান, ময়নূর রহমান বাবুল, সাঈম চৌধুরী, গোলাম আকবর মুক্তা, নুরুল ইসলাম (ইসলাম), হামিদ মোহাম্মদ, সালাহউদ্দিন শাহিন, আবুল কালাম আজাদ ছোটন, মো. হাফিজুর রহমান প্রমুখ। সভায় সদস্য সংগঠনগুলোর প্রতিনিধিদের নিয়ে বিভিন্ন উপ-কমিটি গঠন করা হয়। উল্লেখ্য যে, যুক্তরাজ্যবাসী ও যুক্তরাজ্যে বেড়ে ওঠা নতুন প্রজন্মের কাছে বাংলা ভাষা এবং বাঙালির ইতিহাস ও ঐতিহ্য তুলে ধরার লক্ষে ২০১০ সাল থেকে লন্ডনে বাংলাদেশ বইমেলা, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক উৎসব অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এ বছর ১৯২-১৯৬ হ্য্যানবারি স্ট্রিট, লন্ডন ই১৫ এইচইউ, এই ঠিকানায় মেলা অনুষ্ঠিত হবে। মেলায় যোগদানের জন্য বাংলাদেশের ১৫টি খ্যাতিমান প্রকাশনীকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। সম্মিলিত সাংস্কৃতিক পরিষদ (ইউকে)র সভাপতি ফারুক আহমদ মেলা নিয়ে বেশ উচ্ছ্বসিত। তিনি বলেন, বাংলাদেশের বইমেলার মতোই তৃতীয় বাংলাখ্যাত লন্ডনের বইমেলা ও সাহিত্য-সাংস্কৃতিক উৎসব যুক্তরাজ্যে বসবাসরত বাঙালিদের প্রাণের মেলায় পরিণত হয়েছে। সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্ঠায় এবারের আয়োজনকে সফল ও স্বার্থক করতে তিনি দৃঢ় প্রত্যয়ী।

Share Button


     এ বিভাগের আরো খবর পড়ুন

বিজ্ঞাপন দিন